আমীন খান


আমীন খান ১২৭২ খ্রিস্টাব্দ থেকে ১২৭৪ খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত লখনৌতি এর শাসনকর্তা ছিলেন। শাসনকর্তা হওয়ার পূর্বে তিনি সুলতান গিয়াসউদ্দীন বলবন এর রাজত্বকালে দিল্লির একজন অন্যতম প্রধান আমীর ছিলেন। সুলতান তাকে অযোধ্যার শাসনকর্তা নিযুক্ত করেন। লখনৌতির শাসনকর্তার পদ শূন্য হলে সাধারণত অযোধ্যার শাসনকর্তা লখনৌতির শাসনভার গ্রহণ করতেন। এ ঐতিহ্য অনুসরণ করে ১২৭২ খ্রিস্টাব্দে শের খানের মৃত্যু হলে আমীন খানকে লখনৌতির শাসনভার দেওয়া হয়। যদিও লখনৌতিতে তাঁর কার্যাবলির বিশদ বিবরণ পাওয়া যায় না, তবুও এটুকু বলা যায় যে, বলবন আমীন খানের বিদ্রোহী মনোভাবের পরিচয় পেয়ে তুগরলকে তাঁর উপ-শাসনকর্তা হিসেবে নিযুক্ত করেন।

বলবন উপ-শাসনকর্তা তুগরলকে অধিকতর ক্ষমতা দিয়েছিলেন। ফলে তুগরল ক্রমশ শক্তি সঞ্চয় করেন এবং শ্রীঘ্রই আমীন খানের ক্ষমতাকে উপেক্ষা করে লখনৌতির প্রকৃত শাসক হন। পরিণামে তাঁদের মধ্যে সৃষ্ট সংঘর্ষে তুগরল জয় লাভ করেন এবং আমীন খান বন্দি হন (১২৭৪ খ্রি.)। জিয়াউদ্দীন বরনীর মতে, তুগরিল আমীন খানকে বন্দি করেন এবং পরে তাঁকে হত্যা করেন।  [এ.বি.এম. শামসুদ্দীন আহমদ]