আউলচাঁদ


আউলচাঁদ (আনু. ১৬৯৪-১৭৭০)  ধর্মীয় সাধক ও  কর্তাভজা সম্প্রদায়ের আদিগুরু। আনুমানিক ১৬৯৪ খ্রিস্টাব্দে তাঁর জন্ম। তাঁর পারিবারিক পরিচয় অজ্ঞাত। তিনি পশ্চিমবঙ্গের  নদীয়া জেলার উলাবীরনগর গ্রামের নিঃসন্তান মহাদেব দম্পতির পালকপুত্র ছিলেন। তাঁর বাল্যনাম ছিল পূর্ণচন্দ্র। পালক পিতার গৃহে তাঁর প্রাথমিক শিক্ষা সম্পন্ন হয় এবং পরে তিনি হরিহর ঠাকুরের নিকট  সংস্কৃত ভাষা ও ধর্মশাস্ত্র অধ্যয়ন করেন।

এক মতে আউলচাঁদ মুসলমান ফকিরের শিষ্য ছিলেন, অপর মতে তিনি ফুলিয়ার বলরাম দাসের নিকট বৈষ্ণবধর্মে দীক্ষা গ্রহণ করেন এবং তখন তাঁর নাম হয় আউলচাঁদ। আউলচাঁদ দীর্ঘকাল তীর্থভ্রমণ করে শেষে কাঁচড়াপাড়ার নিকটবর্তী ঘোষপাড়ায় রামশরণ পালের আশ্রয়ে থেকে ধর্মেকর্মে মনোনিবেশ করেন। ক্রমে তাঁর অলৌকিক ক্ষমতার কথা প্রচারিত হয়। তিনি প্রথমে রামশরণসহ বাইশজনকে দীক্ষা দেন। এঁরাই তাঁর আদি শিষ্য। এ থেকেই কর্তাভজা সম্প্রদায়ের সূত্রপাত। রামশরণ পাল ‘কর্তাবাবা’ ও তাঁর পত্নী সরস্বতী দেবী ‘কর্তামা’রূপে পরিগণিত হন। শিষ্যরা আউলচাঁদকে চৈতন্যদেবের অবতাররূপে মান্য করে। তিনি কর্তাভজা সম্প্রদায়ের আদিগুরুর মর্যাদা পান। তিনিই এ লৌকিক ধর্মমতের মানবতাবাদী ধ্যানধারণা প্রচার করেন। আনুমানিক ১৭৭০ খ্রিস্টাব্দে আউলচাঁদ দেহরক্ষা করেন। বোয়ালিয়ায় অবস্থিত তাঁর সমাধিমন্দিরে প্রতিবছর ভক্তজনের সমাবেশ হয়।  [ওয়াকিল আহমদ]