অর্কেস্ট্রা


অর্কেস্ট্রা  বিভিন্ন বাদ্যযন্ত্রের সম্মিলিত বাদন, যা ঐকতানবাদন বা বৃন্দবাদন নামেও পরিচিত। এর উদ্ভব মূলত পাশ্চাত্যে। ১৬০০ খ্রিস্টাব্দের পরবর্তী সময় থেকে অর্কেস্ট্রার সুসংহত ও উৎকর্ষপূর্ণ যুগের সূচনা হয়। এর দ্বিতীয় যুগ শুরু হয় ১৭০০ খ্রিস্টাব্দের পর থেকে। ১৮০০ খ্রিস্টাব্দের পরে এর আধুনিক পর্বের সূচনা এবং বিশ শতকের প্রথম ভাগে এর গঠন ও রূপায়ণে চলে নানাবিধ পরীক্ষা-নিরীক্ষা। এ সময়েই পাশ্চাত্য সঙ্গীতের সঙ্গে দেশিয় সঙ্গীতের সংযোগের ফলে অর্কেস্ট্রা এ দেশের সঙ্গীতে প্রবেশ করে। একবিংশ শতকে একই ধারা অব্যাহত থাকে। তার আগে গানের সঙ্গে বিভিন্ন বাদ্যযন্ত্র অনুষঙ্গ হিসেবে বাজানো হতো। এর উদ্দেশ্য ছিল সঙ্গীতকে অধিকতর শ্রুতিমধুর করে পরিবেশন করা এবং সে সঙ্গে গানের ফাঁকে গানের প্রথম অংশটুকু বাদ্যযন্ত্রে বাজিয়ে শিল্পীকে কিছুটা অবকাশ দেওয়া।

বিশ শতকের পূর্বভাগে ওস্তাদ  আলাউদ্দিন খাঁ বিখ্যাত নৃত্যশিল্পী উদয়শঙ্করের সঙ্গে বিদেশ সফর শেষে দেশে প্রত্যাবর্তনের পর দেশিয় বাদ্যযন্ত্র সমন্বয়ে প্রথম বৃন্দবাদন প্রচলন করেন। মাইহার-রাজের সভাসঙ্গীতজ্ঞ পদে অধিষ্ঠিত থাকাকালে তিনি ‘মাইহার স্ট্রিং ব্যান্ড’ নামে এ অর্কেস্ট্রা দল গঠন করেন। তাঁকে অনুসরণ করে অনুজ ওস্তাদ আয়েত আলী খাঁ রামপুর রাজের সভাসঙ্গীতজ্ঞ পদে অধিষ্ঠিত থাকাকালে ‘রামপুর স্ট্রিং ব্যান্ড’ প্রবর্তন করেন। এভাবে ক্রমশ বৃন্দবাদন ভারতীয় সঙ্গীতে প্রসার লাভ করে। তিমিরবরণ, পন্ডিত রবিশঙ্কর, ওস্তাদ আলী আকবর খান, ওস্তাদ ফুলঝুরি খান, ওস্তাদ আবেদ হোসেন খান, ওস্তাদ মীর কাশেম খান, ধীর আলী মিয়া, সমর দাস, দেবু ভট্টাচার্য, ওস্তাদ খাদেম হোসেন খান, ওস্তাদ বাহাদুর হোসেন খান, সাদের আলী, ধীর আলী মিয়া প্রমুখ শিল্পী বৃন্দবাদন পরিচালনায় অগ্রণী ভূমিকা পালন করেন।

অর্কেস্ট্রার যন্ত্রবিন্যাস প্রধানত চার প্রকার স্ট্রিং বা তত, উইন্ড বা শুষির, মার্বেল বা ঘন এবং আবদ্ধ বা চামড়ার ছাউনিযুক্ত বাদ্যযন্ত্র। একটি বৃহৎ অর্কেস্ট্রায় ততযন্ত্রের সংখ্যা থাকে সর্বাধিক প্রায় দু-তৃতীয়াংশ, শুষিরযন্ত্র থাকে এক-চতুর্থাংশ, ঘনযন্ত্র বাদনের জন্য নিযুক্ত থাকে চার-পাঁচজন এবং পারকাশন বা তালযন্ত্র বাদনে থাকে তিন থেকে পাঁচজন শিল্পী। গোটা অর্কেস্ট্রা যিনি রচনা ও পরিচালনা করেন তাকে বলা হয় কম্পোজার ও কন্ডাক্টর। তিনি অর্কেস্ট্রা রচনার সঙ্গীত পরিকল্পনা এবং তা রূপায়ন করেন। আর এ সঙ্গীত যখন বৃন্দযন্ত্রে ধ্বনিত হয় তখন তাকে বলা হয় সিম্ফনি। বর্তমানে বাংলা গানে অর্কেস্ট্রার ব্যবহার হয়ে থাকে এবং তা বেশ জনপ্রিয়ও।  [মোবারক হোসেন খান]