অভিনন্দ


অভিনন্দ  ৯ম শতকের সংস্কৃত পন্ডিত ও কবি। তিনিই বিখ্যাত রামচরিত গ্রন্থের প্রণেতা। অভিনন্দ ছিলেন গৌড়ের অধিবাসী। তাঁর পিতা শতানন্দও ছিলেন একজ  সংস্কৃত কবি। শতানন্দের উদয়সুন্দরীকথা থেকে জানা যায় যে, অভিনন্দ পালবংশীয় যুবরাজ হরবর্ষের সভাকবি ছিলেন। এ হরবর্ষ ও রাজা দেবপালকে কেউ কেউ অভিন্ন মনে করেন। এ সূত্রে অভিনন্দকে নবম শতকের লোক বলে মনে করা হয়।

চল্লিশ সর্গে রচিত রামচরিতের উপজীব্য রামায়ণ-কাহিনী। এর প্রথম ৩৬টি সর্গ রচনা করেন অভিনন্দ এবং অবশিষ্ট ৪টির রচয়িতা জনৈক ভীম। অভিনন্দ ন্যায়শাস্ত্রেও সুপন্ডিত ছিলেন। কাদম্বরীকথাসার প্রণেতা আর একজন অভিনন্দের কথা জানা যায়। তিনি কাশ্মীররাজ শঙ্করবর্মার সভাকবি জয়ন্তভট্টের পুত্র ছিলেন। জয়ন্তভট্ট রাজার আদেশে ন্যায়মঞ্জরী (৮৮০ খ্রি.) কাব্য রচনা করেন। অভিনন্দ তাঁর কাব্যে নিজেকে বাঙালির বংশধর এবং তাঁর পূর্বপুরুষরা গৌড়বাসী ছিলেন বলে আত্মপরিচয় দিয়েছেন। শার্ঙ্গধরের কোষকাব্যেও তাঁর প্রসঙ্গে গৌড়ের কথা আছে।  [নিখিল রঞ্জন বিশ্বাস]